Sokaler Hasi
Lifestyle

ফল-সবজির খোসা অনেকভাবে ব্যবহার করা যায়।

আমরা সব সময় ফল-সবজির খোসা ফেলে দেই।  কিন্তু খাবারের যে অংশটুকু ফেলে দিচ্ছি তা আমাদের জন্য উপকারী কি না তা জেনে নেয়াও জরুরি। কারণ না জেনে উপকারী অংশ বাদ দিলে বরং তা আমাদেরই ক্ষতি। আর ফল ও সবজির খোসারও রয়েছে নানা গুণ –

আলুর খোসা

ভিটামিন সি রয়েছে আলুর খোসায়। নানা চোখ ফোলা, চোখের কোলে কালি পড়লে বা অতিরিক্ত ক্লান্ত থাকলে ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে আলুর খোসা ব্যবহার করুন।  

লেবুর খোসা

লেবু খাওয়ার পর খোসা শুকিয়ে নিন রোদে। এ বার তা গুঁড়া করো রেখে দিন কোনো এয়ার টাইট পাত্রে। দুধ, মধু ও ওটসের সঙ্গে মিশিয়ে একটা ফেস মাস্ক তৈরি করে ফেলুন। ত্বক থেকে তেল দূর করতে, মুখে আলাদা উজ্জ্বলতা আনতে এই মাস্ক খুব উপকারী। মশা-মাছি-আরশোলার যন্ত্রণায় অস্থির? পোকামাকড় তাড়াতে ঘরের কোনায়-কোনায়, কাপড়ের আলমারিতে ও বই এর তাকে লেবুর খোসা রাখতে পারেন৷ 

কলার খোসা

জুতা থেকে দাগ তুলতেও কলার খোসাকে ব্যবহার করা যায়। পাকা কলার খোসার ভিতরের অংশ জুতার উপরে ঘষুন কিছুক্ষণ। তারপর পাতলা কাপড় দিয়ে মুছে নিন জুতা।দাঁতের হলুদ ভাব কাটাতেও কলার খোসা কাজে লাগে। প্রতিদিন সকালে কলার খোসার ভিতরের অংশ দাঁতে ঘষুন কিছুক্ষণের জন্য। এরপর টুথপেস্ট দিয়ে দাঁত মাজুন। সপ্তাহখানেকে দাঁত হয়ে উঠবে ঝকঝকে সাদা।

কমলার খোসা

ত্বকের যত্নে হাজার বছর ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে কমলার খোসা। কমলা বা মালটা খাওয়ার পর খোসা রোদে শুকিয়ে গুঁড়া করে নিন। দুধের সর, ময়দার সঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে ত্বকে মেখে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে নিন।  

 

 

Related posts

বর্ষায় উজ্জ্বল ত্বক রাখবেন যেভাবে

admin

লাল শাকের উপকারিতা জানেন কি?

admin

স্পাইসি ঢেঁড়স রেসিপি তৈরি করবেন কিভাবে

admin

Leave a Comment